YouTube থেকে কিভাবে ইনকাম করবেন

YouTube থেকে কিভাবে ইনকাম করবেন


হাই, কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভাল আছেন সবাই। আপনারা হয়তো করোনার এই ভয়াবহর জন্য কাজ করতে পারছেন না। এবং ভাবছেন যে বাড়ি থেকেই ইনকাম করতে পারলে ভালো হতো। এই জন্যই আমি আজকে আপনাদের বলবো যে কিভাবে ইউটিউব থেকে ইনকাম করবেন। আরো জানাবো ইউটিউব থেকে ইনকাম এর সহজ উপায়।

ইউটিউব দিয়ে কীভাবে ইনকাম করতে হয় তা আজকে জানাব। আপনি ও খুব সহজে ইনকাম করতে পারেন। তবে আপনি সম্ভবত ইউটিউব সম্পর্কে ইতিমধ্যে জানেন যা একটি ভাল জিনিস, তবে তা না চিন্তার কোন কারণ নেই আজ আমি আপদেরকে ইউটিউব থেকে কীভাবে ইনকাম করার জাই তার সম্পর্কে তথ্য দিতে যাচ্ছি। আপনার মনের সমস্ত অনুষদগুলির মতো অনেক টাকা অনকাম করতে পারবেন।

আমরা সবাই জানি আমাদের দেশে বেকার সমস্যা রয়েছে। পড়ালেখা করেও অনেকে বেকার বয়সা রয়েছে, কেউ ভাল কাজ করতে পারছে না,যারা কারণে মানুষ টাকা উপার্জনের জন্য অপরাধের মতো অপত্তিজনক কাজ করেও পিছু হটছে না এবং এটি এতে বৃদ্ধিও পাছে না।এমন পরিস্তিতিতে মানুষ অর্থ উপার্জনের কথা ভাবে।এতে লোকেরা অনলানের পাশাপাশি অফলাইন প্রতি তাদের আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করেছে।আমি যদি অনলাইনে কথা বলি তবে ব্লগিং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ইবুক,রেভিনিউস,ফ্রিল্যান্সিং, আপ ওয়ার্ক এবং ওডেস্ক ইত্যাদি মতো আর অনক গুলো টাকা উপার্জন করার উপাই আছে।

কিন্তু আমি মনে করি যে ইউটিউবে থেকে ভাল এবং সহজ কোন উপায় নেই। এর মধ্যে সর্বাধিক বিখ্যাত ব্লগিং এবং অন্যটি এটি পর্যবেক্ষণ করে ইউটিউব থেকে টাকা উপার্জন করা।আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন ইউটিউবে ব্যক্তিত্বরান কেন আপনার চ্যানেলকে পুনো সময়ের কাজের মতো আচারণ করতে? উত্তরটি খুব সহজ কারণ তারা তাদের ইউটিউব চ্যানেল থেকে ভাল অর্থ উপার্জনের করে।তাই এখন আপনার নিশ্চিয়াই ভাবছেন যে তারা কীভাবে তা কারতে পারে যা অতস্কিত হয় না কারণ আমি আজ

কীভাবে ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন

কাবেন সেই সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি যাতে আপনিও আর্থ উপার্জন করতে পারেন।সুতরাং আসুন শুরু করেন এবং কীভাবে ইউটিউব থেকে টাকা করবেন তা জেনে নেওয়া জাক।

  • কীভাবে ইউটিউব থেকে ইনকাম করা যায়।
  • টাকা ইনকামে জন্য ইউটিউব সব থেকে ভাল বিকল্প।
  • ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করা যায়।
  • সিপিএম, আরপিএম এবং ইসিপিএম কী?
  • ইউটিউব থেকে কী করা যায় এবং কী উপার্জন করা যায় না।
  • আপনি কী ধরনের ভিডিও করবতে পারবেন?

ইউটিউব দিয়ে কীভাবে অর্থ উপার্জন করা যায়।

অনলাইনে থেকে অর্থ উপার্জনের কথা যখন আসে তখন লোকেরা কেবল দুইটি ভাল বিকল্প দেখতে পায়,একটি হলো ব্লগিং এবং অন্যটি ইউটিউব।ইউটিউব তুলনাই অনেকে ব্লগিং পছন্দ করেন কারণ এটি ভাল সিপিসির কারণে।অথবা হয়ত ব্লগিংয়ের মধ্যে কেবল লেখার অন্তর্ভুক্ত রয়েছে,যা তার অনক সহজ মনে করে।তবে তারা সম্ভবত ভুলে গেছেন যে ব্লগিং বাদে খুব ভাল বিকাল্প রয়েছে এবং তাহল ইউটিউবে একটি ভিডিও তৈরি করা এবং এটি পরে পর্যবেক্ষণ করা।আপনি জেনে অবাক হবেন যে ইউটিউবে আপনি ব্লগিং এর চেয়ে বেশি টাকা উপার্জন করতে পারবেন এবং এটি একবারে সত্য।এটি সাথে আরও একটি কারণ রয়েছে যেগুলো লোকেরা পড়ার থেকে দেখতে বেশি পছন্দ করে এই কারণে আমাদের বাংলা চ্যানেল গুলো বই বা বইয়ের চেয়ে বেশি জনপ্রিয় এবং সম্ভবত আপনিও এইটা জানেন।

ইউটিউব কেন অর্থ উপার্জনের জন্য ব্লগিং এর চেয়ে ভাল বিকল্প

  • ডোমেন এবং হোস্টিং লাগে না। 

ইউটিউবে বৃহত্তম প্রাপ্তি হল আপনারা এখানে ডোমেন এবং হোস্টিং বিনিয়োগের দরকার নেই যা শুরুতে ব্লগিংয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ।এখানে আপনিও কেবল আপনার চ্যানেলের নাম আপনার আনলান উপস্থিতি প্রদর্শন করতে পারেন।আপনার ইউটিউব চ্যানেলের র্দশকরা আপনার সমস্ত বিডিও এবং সামপ্রতিক ক্রিয়াকলাপ দেখতে পাবে, যাতে প্রতি আপনার বিশ্বাস বাড়ে। এটির সাহাজে আপনি শুনতে শুনতে পছন্দ করতে পারেন যে আপনার ডাটা শীর্ষ ওয়েবসাইটটিতে মেজহুদ, যার অর্থ সার্ভারটি বিশ্বের প্রায় সব জায়গাতেই মেহুদ যেখানে ইন্টারনেটে রয়েছে এবং এটিতে আপনার ডাটাও। আমি যদি সং ক্ষেপে বলি এর আর্থ হল আপনি আর্থ ব্যয় না করে আপনি বাড়িতে বসে বসে প্রচুর অর্থ উপার্জনের করতে পারবেন।

ইউটিউব আপনি প্রথম দিন থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন 

আমি ইউটিউব সম্পর্কে সর্বোত্তম জিনিসটি হল আপনি প্রথম দিন থেকে আর্থ উপার্জন করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে কেবলমাত্র একটি ইউটিউব তৈরি করতে হবে এবং ভাল ভিডিও আপলোড করতে হবে।হ্যা, মনে রাখবেন আপনি যে ভিডিও আপলোড করছেন তা YouTube এবং অ্যাডসেন্সের শর্তাদি লঙ্ঘন করা উচিত নয় এবং এই জিনিসটি সম্ভবত ব্লগিংয়ে মোটেই বেধ নয়।

ইউটিউব অ্যাডসেন্স অনুমোদন পাওয়া খুব সহজ 

যদি আমরা ব্লগিং মেইন অ্যাডসেন্স অনুমোদন কথা বলি বেশির ভাগ ব্লগার এটি পেতে 4 থেকে5 মাস সময় লাগে,যখন ইউটিউবে অ্যাসেন্স অনুমোদন পাওয়া খুব সহজ। হ্যা, এখানে একটি বুঝতে হবে যে ইউটিউব অ্যাকাউন্টটি হল “কনটেন্ট হোস্টের জন্য অ্যাসেন্স” যা বেশ আলাদা এবং ব্লগে প্রদর্শিত প্রচলিত বিজ্ঞাপনগুলির থেকে আলাদাভাবে কাজ করে।

ইউটিউব প্রচুর দর্শক এবং একটি বিশাল প্যাটফর্ম পায় 

ব্লগের তুলনায়, এখানে দর্শকদের সংখ্যা খুব বেশি ।একবার আপনি কোন ভিডিও আপলোড কারলে তাতক্ষণিকভাবে লক্ষ লক্ষ লোক এটি দেখতে পারে। যদি আপনার ভিডিও টি আরও আকর্ষণীয় হয়ে ওঠে আপনি খুব আল্প সময়ে ইউটিউবার সেলিব্রিটি হয়ে ওঠবেন।যেখানে ব্লগিং এমন প্রচার পেতে অনক দিন সময় লাগে।

ইউটিউব থেকে কীভাবে অর্থ উপার্জনের করা যায়। 

শুরু করার আগে,আপনাকে অবশ্যই ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন তা অবশ্যই পড়তে হবে। কীভাবে লোকেরা ইউটিউব ব্যবহার করে প্রচুর অর্থ উপার্জন করে। তা এটি যতটা সহজ মনে হয় ততটা সহজ নয়। এর জন্য আপনাকে প্রথমে বুঝতে হবে যে এমন কয়েকটি উপায় রয়েছে যার মধ্যেমে আমরা এটি ব্যবহার করে ভাল অর্থ উপার্জন করতে পারি।আপনি যেভাবে ভাল অর্থ উপার্জন করতে পারবেন সেই ভাবে লিখছি।

গুগল অ্যাডসেন্স

আপনার ইউটিউব চ্যানেল, আপনি অ্যাডসেন্সের সাহায্যে নিরীক্ষণ করতে পারেন। অ্যাডসেন্স আপনার ভিডিও গুলিতে প্রাসঙ্গিক প্রদর্শন করবে এবং যখনি কোনও দর্শক সেই অ্যাডটিতে ক্লিক করে,আপনি এটিতে থেকে টাকা উপার্জন করতে পারবেন। এটি ইউটিউব থেকে টাকা উপার্জন করার সহজ পদ্ধতি।

স্পনসর করা ভিডিও 

এই ধরনের ভিডিও থেকে টাকা উপার্জনের জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার চ্যানেলটি জনপ্রিয় করতে।

Post a Comment

0 Comments